Wed. Jan 22nd, 2020

দৈনিক শিক্ষা খবর

যেভাবে মুজিব বর্ষে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হতে পারে

বাংলাদেশের অন্যতম একটি দিন হচ্ছে ২০২০ সালের ১৭ ই মার্চ। এ দিনটি হল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এর ১০০তম জন্ম দিন।  তাই বাংলদেশ সরকার এ বর্ষকে মুজিব বর্ষ ঘোষণা করছে। এ বর্ষ হল স্মরণীয় বর্ষ। বাংলাদেশ স্বাধীণ হওয়ার পর হতে আজ পর্যন্ত উন্নয়নের ধারা অব্যাহত আছে । উন্নয়নের অধিকাংশই করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী সরকার।   এ উন্নয়ন অন্যতম শাখা হল শিক্ষা শাখা।

যে জাতি শিক্ষায় যত উন্নত সে দেশ তত উন্নত তাই এ উন্নয়ন করতে হলে অবশ্যই শিক্ষার উন্নয়ন প্রয়োজন। বাংলাদেশে শিক্ষার প্রায় ৯০% নির্ভর করে এ দেশের এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি শিক্ষকগণের উপর।

শিক্ষার উন্নয়ন বলতে বুঝি শিক্ষার মান উন্নয়ন এবং মেধার বিকাশ ঘটনো।

তাই অতিব গুরুত্বের সাথেই বিবেচনা করেন বলেই আওয়ামী সরকারের আমলে সকল রেজিষ্টারি প্রাইমারি রাজস্বে নেন। এছাড়া এমপিও শিক্ষদের ১০০% বেতন কার্যকর করা সহ বৈশাখি পাতা দেন।

বাড়ি ভাড়া,  ঈদের পূর্নাঙ্গ বোনাস, পেনসিয়ান এ তিন টি আমাদের বেসরকারি শিক্ষকদের দিতে হলে জাতিয়করণ করে দিতে হবে। 

আর এ গুলো দিলে বেসরকারি শিক্ষকগণদের চাহিদা মিটবে।

পেটে ক্ষুদা রেখে মেধার বিকাশ এবং শিক্ষার মান উন্নয়ন করা খুব কঠিন।

তাই আওয়ামী সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাচিনার নিকট আকুল আবেদন করে জানাতে হবে দেশে উন্নয়নের জন্য এ দেশের শিক্ষকদের মান উন্নয়ন করতে হবে।

এ দাবি করা যেতে পারে যে ভাবেঃ

১- শিক্ষকদের সকল কমিটিগুলোর দাবি যেহেতু  এক সেহেতু সব কমিটি মিলে একটি শক্তিশালী কমিটি করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে সাক্ষাতে দাবি তুলে ধরা এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে দাবি আদায়ের প্রতিশ্রুতি চাওয়া।

২- প্রথম পদক্ষেপে সফল না হলে একটি বৃহৎ মানব বন্ধন করা দাবি আদায় আলটিমেটাম দিয়ে মহাসমাবেশ করা হবে বলে ঘোষনা দেওয়া।

৩- মহাসমাবেশে আবার দাবি আদায় করতে কর্মবিরতির কথা বলে আলটি মেটাম দেওয়া এবং দাবি আদায় করার জন্য সারা বাংলাদেশে একই সাথে কর্মবিরতি পালন করা।

৪- কর্মবিরতিতে দাবি আদায় নাহলে কর্মবিরতি রেখে ঢাকা প্রেসক্লাবে  অনশন করতে হবে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য।  দাবি একটাই জাতীয়করণে ঘোষনা না দেওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে।

সকল শিক্ষক সংগঠন এবং সকল শিক্ষকগণকে আমি বলছি ঠিক এ ভাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে জানাতে পারলে ১৭ই মার্চ বা এ ২০২০ সালেই জাতীয়করণের ঘোষনা পাওয়া যাবে ইনশাল্লাহ।

আকলিমা, সহকারি শিক্ষক,  কাদিরপুর সিনিয়র মাদ্রাসা,  শিবচর, মাদারীপুর।