২৮শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
বুধবার , নভেম্বর ১৩ ২০১৯
Breaking News
Home / জাতীয় / বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পেনশনের ঘোষণা চাই।

বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পেনশনের ঘোষণা চাই।

দৈনিকশিক্ষাখবর ডেস্ক, আবুল হোসেন: দ্রুত অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তনের প্রজ্ঞাপন বাতিল সহ বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পেনশনের ঘোষণা চাই। 
শিক্ষা ব্যবস্থা একই পাঠ্যক্রমে পরিচালিত হয়। তবুও শিক্ষা ব্যবস্থায় সবার জন্য সমান সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান নেই। বৈষম্যে নিমজ্জিত শিক্ষা ব্যবস্থা। শুরু হয়ে গেছে বেসরকারি শিক্ষা ব্যবস্থায় কর্তন কর্তন খেলা। সরকারি অংশ থেকে কর্তন করা হয় ১০ শতাংশ। অপর দিকে সরকারি শিক্ষকদের নাম মাত্র কর্তন করা হয়। কিন্তু সুযোগ সুবিধা পায় পূর্ণাঙ্গ। 
শিক্ষা ব্যবস্থায় দুই ধরনের  নীতি এ যেন সৎ মায়ের মত আচরণ। একই শিক্ষা ব্যবস্থা দুই ধারায় বিভক্ত সরকারি এবং বেসরকারি। সরকারিরা পাবে পূর্ণাঙ্গ সুযোগ সুবিধা আর বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা পাবে অর্ধেক সুযোগ সুবিধা। সরকারি শিক্ষকরা পায় পেনশনের সুযোগ সুবিধা। কিন্তু বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের নেই পেনশনের সুযোগ সুবিধা। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের অবসর এবং কল্যান তহবিলের নামে (৭৫+২৫) বা ১০০ মাসের বেতনের সমতুল্য সর্বশেষ স্কেলের সমান টাকার সুযোগ সুবিধা বিরাজমান। যা কোনো মতেই মেনে নেয়া যায় না। সমান যোগ্যতা থাকা সত্বেও এত বিভাজন কেন? 
দীর্ঘদিন বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা চাকরি শেষে পেত একটি ছাতা এবং সামান্য উপহার। সেই বাস্তবতা উপলব্ধি করে গঠন করা হয় অবসর এবং কল্যান তহবিল। শিক্ষক সমাজের কল্যান করার জন্য কিন্তু বর্তমান সময়ে দেখা যাচ্ছে অবসরে যাওয়ার পর ভোগান্তির শেষ নেই। অবসর ও কল্যান তহবিলের টাকা উত্তোলন করতে সময় লেগে যায় বছরের পর। ফাইল জমা পড়ে থাকে বছরের পর বছর।  টাকার সংকট দেখানো হয়। শিক্ষকদের সরকারি অংশ থেকে কর্তন কৃত টাকা নিজ একাউন্টে জমা রাখার ব্যবস্থা করলে এ সমস্যার সমাধান হতে পারে। নিজের গচ্ছিত টাকা তুলতে টাকার সংকট দেখানো হয় কেন এটা আমাদের বোধ গম্য নয়। প্রথমে অবসর এবং কল্যান তহবিলে  ৬ শতাংশ হারে কর্তন দিয়ে শুরু  করে।  অবসরে জন্য কর্তন করা হত ৪ শতাংশ হারে এবং কল্যান তহবিলের জন্য কর্তন করা হত ২ শতাংশ হারে। এই কর্তন কৃত টাকার  সর্বমোট সুযোগ সুবিধা বলতে আমরা যা পাই তাহল ১০০ মাসের বেতনের সমতুল্য সর্বশেষ স্কেলের সমান টাকা। কিন্তু বর্তমান সময়ে অবসর ও কল্যান তহবিলের টাকার সংকট কাটাতে শুরু হয় ২০১৯ সাল থেকে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তন। যুক্তি দেখানো হয় অবসরে যাওয়ার পর শিক্ষকদের ভোগান্তির কথা। টাকার সংকট কাটাতে এই পরিকল্পনা করা হয়।  কিন্তু এটা যুক্তি সঙ্গত নয় বলে শিক্ষকদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। দেখা দেয় শিক্ষক অসন্তোষ। পূর্বের সুযোগ সুবিধা বহাল রাখার কারণে এখনো চলছে শিক্ষক অসন্তোষ। অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তন করায় বর্তমানে এর পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে সর্বমোট ১০ শতাংশ। অবসরে ৬ শতাংশ এবং কল্যান তহবিলে ৪ শতাংশ হারে কর্তন করা হচ্ছে। যা শিক্ষকদের সরকারি অংশের সিংহভাগ কর্তন করা হয়। এতে অধিকাংশ শিক্ষক বাস্তব জীবন কষ্টে কাটাচ্ছে। সংসার চালাতে খাচ্ছে অধিকাংশ শিক্ষক হিমশিম। নুন আনতে পানতা ফুরায় বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের। অন্য কোনো পেশায় এভাবে মূল স্কেল থেকে কর্তন করে পেনশনের ব্যবস্থা করা হয় কিনা জানা নেই। কিন্তু বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের জন্য এই প্রথার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যা মরার ওপর খাঁড়া ঘা। প্রতিটি শিক্ষক কিন্তু বাস্তব জীবন খুবই কষ্টে কাটাচ্ছে। আয়ের সাথে ব্যয়ের হিসেব মিলে না। সংসার চালাতে তাই ধারদেনা করতে হয়। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের এই জীবনের নাম হতাশার জীবন। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তাই পিছুটান থাকে চাকরি জীবনে। অতিরিক্ত কর্তনের হিসেবে আমাদের প্রাপ্ততা পাওয়ার অধিকার আমাদের আছে তাই  এই হাতাশার জীবন থেকে মুক্তি পেতে কর্তন বন্ধ করে বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পেনশনের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা গণের নিকট। আপনারাই পারেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বুঝিয়ে এই সমস্যার সমাধান করতে। আপনাদের একটি বিশেষ পদক্ষেপই হতে পারে শিক্ষা ব্যবস্থার সকল সমস্যার সমাধান। আমরা পথ চেয়ে বসে আছি আপনাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়। দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাদের জীবনকে রক্ষা করুন। ধন্যবাদান্তেমোঃ আবুল হোসেন সিনিয়র যুগ্ম- মহাসচিব বাশিস (কেন্দ্রীয় কমিটি)

Facebook Comments

Check Also

অবস্থান কর্মসূচিতে বদলির দাবিতে অনশনের হুমকি-শিক্ষা খবর

প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন ও বদলি ব্যবস্থা চালুর দাবিতে আজ শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের পদযাত্রা ও …

বদলির দাবিতে শিক্ষকরা মাঠে নামছেন কাল-দৈনিক শিক্ষা খবর

এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষকদের বদলি ব্যবস্থা চালুর দাবিতে ও আগামী গনবিজ্ঞপ্তির আগে ইনডেক্সধারীদের বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে …

এমপিওভুক্ত মাদ্রাসা, ভোকেশনাল, স্কুল, কলেজের তালিকা

সারাদেশের ২ হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২৩ অক্টোবর) গণভবন …

মাধ্যমিক স্তরে এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের পূর্ণাঙ্গ তালিকা

সারাদেশের ২ হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী …