Tue. Jan 28th, 2020

দৈনিক শিক্ষা খবর

গণবিজ্ঞপ্তির পূর্বেই বিভাগীয় প্রার্থী ও ঐচ্ছিক বদলির প্রজ্ঞাপন চাই-শিক্ষা খবর

গণবিজ্ঞপ্তির পূর্বেই বিভাগীয় প্রার্থী ঘোষণা ও ঐচ্ছিক বদলির প্রজ্ঞাপন চাইঃ

এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের বদলি প্রথা চালুকরণ সারা বাংলাদেশের শিক্ষক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গের দীর্ঘদিনের প্রানের দাবি।ম্যানেজিং কমিটির সহকারী শিক্ষক নিয়োগের ক্ষমতাকে রহিত করে কেন্দ্রীয়ভাবে নিয়োগ এই সরকারের একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত যা ব্যাপক সুনাম ও প্রশংসা কুড়িয়েছে। সরকারের এই সাহসী পদক্ষেপ শিক্ষাক্ষেত্রে শৃঙ্খলার জন্য দারুণ পজিটিভ কিন্তু এর মাধ্যমে শিক্ষকদের প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনের পথকে একেবারে রুদ্ধ করা হয়েছে। যার প্রমাণ বিগত দুটি গণবিজ্ঞপ্তিতে নিবন্ধনধারী শিক্ষকদের সীমিত প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনের সুযোগ থাকলেও শুধু ইনডেক্সধারীদের জন্য কোন সুযোগই রাখা হয়নি। সর্বশেষ ২০১৮ সালের এমপিও নীতিমালায় ইনডেক্সধারীদের বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে সুযোগ দেওয়ার সুস্পষ্ট ঘোষণা থাকলেও এনটিআরসিএ কতৃপক্ষ তা তোয়াক্কা না করেই বারবার গনবিজ্ঞপ্তি দিয়ে যাচ্ছে ফলশ্রুতিতে প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন প্রত্যাশী শিক্ষকদের মাঝে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। বর্তমানে ‘এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের বদলি বাস্তবায়ন কমিটি ‘সারা বাংলাদেশের শিক্ষকদের প্রানের দাবি বদলি আদায় করতে ধারাবাহিকভাবে কর্মসূচি পালন করছে। শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশ, ও স্মারক লিপি প্রদানের মাধ্যমে ঐচ্ছিক বদলি ও ইনডেক্সধারীদের বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণার দাবিতে বারবার সরকার ও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। এরই মধ্যে বিষয়টির কোন প্রকার সুরাহা ছাড়াই এনটিআরসিএ কতৃপক্ষ আবার তৃতীয় ধাপে নিয়োগ গণবিজ্ঞপ্তি ঘোষণা করতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। যার ফলে নতুন করে আবার প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন প্রত্যাশী শিক্ষকদের মাঝে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে।তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা উপমন্ত্রী, শিক্ষা সচিব ও সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট বিনীত অনুরোধ দ্রুত ঐচ্ছিক বদলির প্রজ্ঞাপন ও ইনডেক্সধারীদের বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে প্রানের দাবিটি মেনে নেওয়া হোক, নতুবা শিক্ষকরা তাদের দাবি আদায় করতে রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে।রীট,মামলা, শিক্ষক অসন্তোষ সহ অনেক কিছুই ঘটতে পারে যা একেবারেই অপ্রত্যাশিত।
অনুরোধক্রমে,
আবুল কালাম আজাদ (০১৭২৩৩৪৯০৭৬)
নওগাঁ জেলা সমন্বয়ক,বদলি বাস্তবায়ন কমিটি।